ইসরায়েলে নেইমার-এমবাপ্পের গোল, মেসির রেকর্ড

148

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

চ্যাম্পিয়নস লিগে ইসরায়েলি কোনো দলের বিপক্ষে লিওনেল মেসির প্রথম ম্যাচ। সঙ্গে যদি নেইমার ও কিলিয়ান এমবাপ্পের মতো তারকা থাকেন, তাহলে তো কথাই নেই! উয়েফার ওয়েবসাইটে ম্যাচের সরাসরি ধারাবিবরণীতে জানানো হয়, স্যামি ওফের স্টেডিয়ামের বাইরে ম্যাকাবি হাইফার সমর্থকেরাই বলাবলি করেছেন, ‘এটা ক্লাবের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ম্যাচ।’ আর এমন ম্যাচেই যদি দল আগে গোল পায়? সোনায় সোহাগা!

ইসরায়েলি ক্লাব ম্যাকাবি হাইফা ম্যাচে প্রায় ১৩ মিনিট এমন সোনায় সোহাগা সময় পার করেছে। কিন্তু জিততে পারেনি। প্রথমার্ধেই লিওনেল মেসির গোলে সমতায় ফেরে পিএসজি। বিরতির পর কিলিয়ান এমবাপ্পে ও নেইমারের গোলে ইসরাইল থেকে ৩-১ গোলের জয় তুলে নিয়েছে ক্রিস্তোফ গালতিয়েরের দল।

প্রথমার্ধে পিএসজির চেয়ে ভালো খেলেছে স্বাগতিকরা। সের্হিও রামোস, মারকিনিওসরা জমাট রক্ষণ গড়তে পারেননি। ক্রস ও গতি দিয়ে পিএসজির বক্সে ভালোই ঘোরাফেরা করে হাইফার আক্রমণভাগ। তবে ২৪ মিনিটে পাওয়া গোলটির উৎস ছিল মাঝ মাঠে পিএসজির বল হারানো। হাইফার উইঙ্গার বল নিয়ে ডান প্রান্ত দিয়ে এগিয়ে মাপা ক্রস ফেলেন পিএসজির বক্সে। সেখানে ওত পেতে থাকা তিয়ারন চেরির ভলি কেউ ঠেকাতে পারতেন না। গোল!

তখন স্বাগতিক সমর্থকদের উল্লাসের গর্জন সুদূর প্যারিস থেকে শোনা গেলেও অবাক হওয়ার কিছু নেই। স্লোগান, সমর্থনে ম্যাচের প্রায় পুরো সময় গ্যালারি মাতিয়েছেন হাইফার দর্শক। আর গোলটাও তাঁদের অপেক্ষা ঘুচিয়েছে। চ্যাম্পিয়নস লিগে ২০০২ সালের পর এটা ম্যাকাবি হাইফার প্রথম গোল। উল্লাস লাগাম ছাড়ানোই স্বাভাবিক।

আবার পিনপতন নীরবতাও নেমেছে। হাইফা এগিয়ে যাওয়ার ১৩ মিনিট পর যখন মেসি গোল করলেন। ম্যাচের তখন ৩৭ মিনিট। বাঁ প্রান্ত দিয়ে রক্ষণ-চেরা দৌড়ে ঢুকে পড়েন ফরাসি ফরোয়ার্ড। তাঁর ক্রস হাইফার এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে সুবিধাজনক জায়গায় পেয়ে যান মেসি। গোল করতে ভুল করেননি। আর এই গোলেই ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে টপকে নতুন এক রেকর্ড গড়লেন আর্জেন্টাইন তারকা। চ্যাম্পিয়নস লিগে সর্বোচ্চ ৩৯টি দলের বিপক্ষে গোলের রেকর্ড এখন মেসির। রোনালদোর গোল ৩৮টি দলের জালে।

প্রথমার্ধে তিনটি সেভ করেছেন পিএসজি গোলকিপার দোন্নারুম্মা। অবাক করা বিষয়, এই অর্ধে হাইফা যেখানে পিএসজির পোস্টে ৪টি শট নিতে পেরেছে, সেখানে ক্রিস্তফ গালতিয়েরের তারকাখচিত আক্রমণভাগ মাত্র ২টি শট নেয়। হাইফা ফরোয়ার্ড ফ্রাৎজ পিয়েরতের গোলটি অফসাইডের কারণে বাতিল না হলে পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যেতে হতো পিএসজিকে। তবে বিরতির পর চিত্রটা পাল্টে যায়। গা ঝাড়া দিয়ে ওঠে পিএসজি।

৬৯ এমবাপ্পের গোলটি পিএসজির ধারাবাহিক আক্রমণের ফসল। আর এই গোলটি মেসির জন্য যেন ‘ঋণমোচন’। এমবাপ্পের পাস থেকে গোল করেছিলেন, এবার রক্ষণ চেরা থ্রুতে তাঁকে দিয়ে গোল করান। চিরাচরিত কোনাকুনি শটে গোল করেন ফরাসি তারকা। নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার ২ মিনিট আগে মার্কো ভেরাত্তির পাস থেকে গোল করেন নেইমার। তাঁর বাতাসে ভাসানো পাস সহজেই জালে পাঠান।

চ্যাম্পিয়নস লিগে এই প্রথম একই ম্যাচে মেসি, নেইমার ও এমবাপ্পে গোল পেলেন। মেসি আরও একটি রেকর্ড গড়েছেন। চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে টানা ১৮ মৌসুমে গোল পেলেন পিএসজি তারকা।
২ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ‘এইচ’ গ্রুপের শীর্ষে পিএসজি। এই গ্রুপ থেকে অন্য ম্যাচে জুভেন্টাসের মাঠে ২-১ গোলে জিতেছে বেনফিকা। পিএসজির সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে পর্তুগালের ক্লাবটি। ২ ম্যাচে কোনো পয়েন্ট না পাওয়া জুভেন্টাস তিনে ও হাইফা চারে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.