উত্তর বারিধারাকে উড়িয়ে জয়ে ফিরলো মোহামেডান

246

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

এর আগে নিজেদের সর্বশেষ দুই ম্যাচে যথাক্রমে ড্র ও হার দেখেছিল শন লেনের দল। অন্যদিকে উত্তর বারিধারা টানা দুই জয়ের পর পেল হারের তেতো স্বাদ।

খেলার শুরু থেকে অবশ্য মোহামেডানকেই চাপে রেখেছিল উত্তর বারিধারা। পঞ্চম মিনিটেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিল দলটি। কিন্তু অধিনায়ক সুমন রেজার দুর্বল শট সরাসরি গোলরক্ষকের গ্লাভসে জমা হয়।

ধীরে ধীরে গুছিয়ে ওঠা মোহামেডান ১৯তম মিনিটেই এগিয়ে যায়। উজবেকিস্তানের ডিফেন্ডার ফজিলভ ফ্লিক করার পর বক্সের একটু ওপরে বল পেয়ে বাঁ পায়ের জোরালো নিচু শটে জালে জড়ান আমি হাকিম বাপ্পী।

তবে মোহামেডানের এগিয়ে যাওয়ার আনন্দ স্থায়ী হয় মাত্র ৫ মিনিট। আর এই গোল হজমের জন্য দায়ী মোহামেডানের রক্ষণের বোঝাপড়ার ভুল। চার ডিফেন্ডার মিলেও থ্রো ইনে বল বক্সে নিয়ন্ত্রণে নেওয়া সুমনকে মার্ক করেননি। এই সুযোগে দুরূহ কোণ থেকে তার জোরালো ভলি দূরের পোস্ট দিয়ে জালে জড়িয়ে যায়।

সমতায় ফেরার পর উত্তর বারিধারাও স্বস্তিতে থাকতে পারেনি। কারণ একের পর এক আক্রমণ শানায় মোহামেডান। ৩৬তম মিনিটে রাকিব খান ইভানের কর্নারে হেডে লক্ষ্যভেদ করে তাদের এগিয়ে দেন দিয়াবাতে।

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে ফিরতে মরিয়া চেষ্টা চালায় উত্তর বারিধারা। ৬০তম মিনিটে সুযোগও এসেছিল। প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়রা প্রস্তুত হওয়ার আগেই দ্রুত ফ্রি-কিক নেন মোস্তফা কাহরাবা। আর তাতে টোকা দিয়ে উজবেকিস্তানের মিডফিল্ডার ইভজেনি কোচনেভ বল জালে পাঠানোর আগেই ছুটে এসে ক্লিয়ার করেন গোলরক্ষক আহসান হাবিব। পরে সুমনের ফিরতি শটও লক্ষ্যে থাকেনি।

উত্তর বারিধারা সবচেয়ে সুবর্ণ সুযোগ পেয়েছিল ৭৪তম মিনিটে। কাহরাবার কর্নার ক্লিয়ার করতে লাফিয়ে উঠা গোলরক্ষক হাবিবের সঙ্গে ধাক্কা লেগে পড়ে যান উত্তর বারিধারার ইউসুফ বাম্বা। যদিও বল গ্লাভসে নিয়েছিলেন গোলরক্ষক। কিন্তু রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজান। কিন্তু ফজিলভের নেওয়ার পেনাল্টি শট ক্রসবারের অনেক উপর দিয়ে উড়ে যায়।

নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার মিনিট দশেক আগে ইয়াসানের গোলে বড় জয় নিশ্চিত করে মোহামেডান। বাপ্পীর ছোট পাসে বল পেয়ে নিখুঁত শটে বল জালে জড়ান নাজেরিয়ার ফরোয়ার্ড। ফলে উত্তর বারিধারা ম্যাচ থেকে ছিটকে যায়।

এই নিয়ে ১৮ ম্যাচে ৯ জয় ও ৫ ড্রয়ে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে চারে আছে মোহামেডান। ১৭ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে ৯ম স্থানে আছে উত্তর বারিধারা। ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে বসুন্ধরা কিংস। ৩৬ পয়েন্ট দ্বিতীয় আবাহনী। এক ম্যাচ কম খেলে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব আছে তৃতীয় স্থানে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.