চোট পেয়ে কাতার বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলেন সেনেগালের তারকা সাদিও মানে

326

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

বিশ্বকাপ ফুটবল শুরু হওয়ার ঠিক আগে চোট পেয়ে ছিটকে গেলেন বায়ার্ন মিউনিখ ও সেনেগালের স্ট্রাইকার সাদিও মানে। তাঁর টেন্ডনে চোট। এই চোট এক সপ্তাহের মধ্যে সারানো অসম্ভব। সেই কারণেই তাঁর পক্ষে কাতারে খেলা সম্ভব হবে না। শুক্রবার সেনেগালের জাতীয় দলের ম্যানেজার অ্যালিউ সিসে বিশ্বকাপের জন্য ২৬ জনের দল ঘোষণা করবেন। তার আগেই দলের সেরা অস্ত্র মানে চোট পাওয়ায় সমস্যায় পড়ে গেল সেনেগাল। বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার মানে। তিনি ইংল্যান্ডের বিখ্যাত ক্লাব লিভারপুলের হয়ে খেলে বিশ্বজোড়া খ্যাতিল লাভ করেন। লিভারপুল ছেড়ে এখন অবশ্য এখন জার্মানির বিখ্যাত ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে খেলেন মানে। সেই দলের হয়ে খেলতে গিয়েই চোট পেয়েছেন এই স্ট্রাইকার। বুন্দেশলিগায় এস ভি ওয়ের্ডার ব্রেমেনের বিরুদ্ধে ম্যাচের প্রথমার্ধে চোট পান মানে। এই চোটই তাঁর কাতারে বিশ্বকাপে খেলার স্বপ্ন শেষ করে দিল। সেনেগাল যেমন এই খবরে মর্মাহত, তেমনই সারা বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীরাও শোকাহত।

সেনেগালের হয়ে এখনও পর্যন্ত ৯২টি ম্যাচ খেলেছেন মানে। জাতীয় দলের হয়ে তাঁর গোলসংখ্যা ৩৩। এ বছরের ফেব্রুয়ারিতেই দেশকে আফ্রিকান কাপ অফ নেশনস জিতিয়েছেন মানে। ‘আফ্রিকান ফুটবলার অফ দ্য ইয়ার’ পুরস্কারও পেয়েছেন মানে। তিনি কাতারে ভাল পারফরম্যান্স দেখাবেন, এই আশাতেই ছিলেন ফুটবলপ্রেমীরা। কিন্তু মানে চোট পাওয়ায় সেই আশা পূরণ হল না।

ইতিমধ্যেই বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গিয়েছেন ফ্রান্সের তারকা পল পোগবা, এন’গোলো কন্তে, জার্মানির টিমো ওয়ার্নার এবং ইংল্যান্ডের রিসি জেমস। আর্জেন্টিনার তারকা অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, পাওলো ডিবালাও বিশ্বকাপে খেলতে পারবেন কি না, সেটা এখনও অনিশ্চিত। ফ্রান্সের ডিফেন্ডার রাফায়েল ভারানও বিশ্বকাপে অনিশ্চিত।

এবারের বিশ্বকাপে গ্রুপ এ-তে আছে সেনেগাল। ২১ নভেম্বর প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হবে সেনেগাল। এরপর ২৫ নভেম্বর দ্বিতীয় ম্যাচে আয়োজক দেশ কাতারের মুখোমুখি হবে সেনেগাল। ২৯ নভেম্বর শেষ ম্যাচে ইকুয়েডরের মুখোমুখি হবে সেনেগাল।

বিশ্বকাপ সাধারণত জুন-জুলাই মাসে হয়। কিন্তু কাতারের আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখে নভেম্বর-ডিসেম্বরে এবারের বিশ্বকাপ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ক্লাব ফুটবল মরসুমের মাঝপথে বিশ্বকাপ আয়োজন করার কারণেই একসঙ্গে এতজন ফুটবলার চোট পেয়েছেন বলেই মনে করেন লিভারপুল ও ইংল্যান্ডের প্রাক্তন ডিফেন্ডার জেমি ক্যারাঘার। তিনি মরসুমের মাঝপথে কাতারে বিশ্বকাপ আয়োজন করার জন্য ফিফাকে দোষারোপ করছেন।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.