জন্মভূমির বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়ের পর বিদায় বললেন মাইবুর্গ

71

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিদায় ঘণ্টা বাজাতে স্টেফান মাইবুর্গেরও অবদান ছিল। যার জন্ম দক্ষিণ আফ্রিকায়! জন্ম ভূমিকে বিদায় দিয়ে ডাচ ব্যাটার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়ের একদিন পরই অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন মাইবুর্গ। অবশ্য এই ঐতিহাসিক জয় সুপার টুয়েলভে গ্রুপ দুইয়ের সব হিসাব-নিকাশ পাল্টে দিয়েছে। এক সময় সেমির জন্য ফেভারিটের তালিকায় থাকা প্রোটিয়াদের এই হারে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে। তাতে লাইফলাইন পেয়ে বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমি নিশ্চিত করেছে পাকিস্তান। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ডাচদের অপ্রত্যাশিত জয়ে টপ অর্ডারে মাইবুর্গ ৩০ বলে ৩৭ রানের দারুণ একটি ইনিংস উপহার দিয়েছেন।

নিজের বিদায়ের কথা জানিয়ে মাইবুর্গ ইন্সটাগ্রামে বলেছেন, ‘বুট জোড়া তুলে রাখলাম…। ঈশ্বরের জয় হোক। ১৭ মৌসুম আগে প্রথম শ্রেণির অভিষেক ও ১২ মৌসুম আগে আন্তর্জাতিক অভিষেক করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করি। কখনো স্বপ্নেও ভাবিনি বিশ্বকাপে ক্যারিয়ারের সমাপ্তিটা প্রোটিয়াদের বিপক্ষে জয় দিয়ে শেষ হবে।’

৩৮ বছর বয়সী মাইবুর্গের জন্ম প্রিটোরিয়ায়। তার পর ২০০৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকাতে ঘরোয়া ক্রিকেটের শুরু। ওই সময় তার সঙ্গে খেলেছেন নিল ওয়াগনার ও পল হ্যারিস।

মাইবুর্গ এই বছরের শুরুতেই ওয়ানডে থেকে অবসরে গেছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলার আগে টি-টোয়েন্টিতে ২১.৭৮ গড়ে তার সংগ্রহ ছিল ৯১৫। স্ট্রাইক রেট ১১৪.৫১। ডাচদের হয়ে সংক্ষিপ্ততম ক্রিকেটে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি। তার আগে রয়েছেন ম্যাক্স ও’ডাউড ও বেন কুপার।

এই ফরম্যাটে মাইবুর্গের সেরা ইনিংসটি ছিল ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ১৭ বলে ফিফটি করেছিলেন। ২৩ বলে তার ৬৩ রানের ইনিংসেই নেদারল্যান্ড ১৯০ রান ১৩.৫ ওভারে তাড়া করে সুপার টেনে যেতে পেরেছিল।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.