লঙ্কানদের সাফল্যে পর্দার অন্তরালের নায়ক কি সুজন?

142

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

হার দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করা শ্রীলঙ্কাই করলো বাজিমাত। আন্ডারডগ হিসেবে খেলতে এসে আসরে নিজেদের নতুন রূপ দেখিয়েছে দাসুন শানাকার দল। শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটে নিশ্চয়ই ইতিবাচক হাওয়া হয়ে কাজ করবে এশিয়া কাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার এই সাফল্য। তবে কীভাবে নিজেদের এতটা পাল্টে ফেললো লঙ্কানরা?

গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচের আগে এক সংবাদ সম্মেলনে লঙ্কান অধিনায়ক দাসুন শানাকা বলেছিলেন, মোস্তাফিজ-সাকিব নিঃসন্দেহে বিশ্বমানের বোলার। তবে এ দুজন ছাড়া বাংলাদেশ দলে বিশ্বমানের আর কোনো বোলার নেই। প্রতিপক্ষ হিসেবে আফগানিস্তানের থেকেও সহজ বাংলাদেশ। তাছাড়া, বাংলাদেশের পরিকল্পনাও শ্রীলঙ্কার জানা। আফগানিস্তানের সঙ্গে তুলনা করলে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ সহজ হবে।

এরপর (৩১ আগস্ট) এক সংবাদ সম্মেলনে শানাকাকে পাল্টা আক্রমণ করেন বাংলাদেশ দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন। তিনি বলেন, শ্রীলঙ্কার সাকিব-মোস্তাফিজের মতো বোলারও নেই। আমি জানি না শানাকা কেনো এমন বলেছে। আমি শুনেছি যে সে বলেছে, বাংলাদেশের সাকিব ও মোস্তাফিজ বাদে বোলার নাই। আমি তো শ্রীলঙ্কার কোনো বোলারই দেখি না। আমাদের তো অন্তত দুজন আছে। তাদের সাকিব-মোস্তাফিজের মানেরও কোনো বোলার নাই।

এশিয়া কাপে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের পর শ্রীলঙ্কা টানা জিতেছে সব ক’টি ম্যাচ। আর সুজনের সাথে শানাকার কথার লড়াইও শুরু হয়েছিল আফগানিস্তানের ম্যাচের পর। দলে কোনো তারকা খেলোয়াড় বা সাকিব-মোস্তাফিজ মানের কোনো খেলোয়াড়ই নেই- সুজনের এমন কথাই ভেতরে ভেতরে তাতিয়ে দিয়েছিল কিনা লঙ্কানদের, সেটা জানা একটু কঠিন। তবে কথার লড়াইয়ের সময়কাল এবং তারপর থেকে লঙ্কানদের অবিশ্বাস্য পারফরমেন্স দেখে চ্যাম্পিয়নদের সাফল্যের কিছুটা কৃতিত্ব বোধহয় পেতেই পারেন সুজন!

Get real time updates directly on you device, subscribe now.