সিডনির হোটেলে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেফতার শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটার দানুশকা গুণতিলকা

72

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

টি-২০ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার সেমি ফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা আগেই শেষ হয়ে গিয়েছিল। শনিবার সুপার ১২ গ্রুপ ১-এর শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে হেরে শ্রীলঙ্কার টি-২০ বিশ্বকাপ অভিযান শেষ হয়। এখানেই লজ্জার শেষ নয়, ক্রিকেটার দানুশকা গুণতিলকা ধর্ষণের অভিযোগ গ্রেফতার হওয়ায় আরও বিপাকে পড়ে গেল শ্রীলঙ্কা দল। এই ক্রিকেটারকে ছাড়াই অস্ট্রেলিয়া ছেড়ে দেশে ফিরে গেলেন শ্রীলঙ্কা দলের বাকি সদস্যরা। গুণতিলকাকে অডিও ভিস্যুয়াল লিঙ্কের মাধ্যমে প্যারামাটা বেল কোর্টে পেশ করা হয়। আদালত জামিনের আর্জি খারিজ করে দেয়। ফলে আপাতত পুলিশের হেফাজতেই থাকতে হবে এই ক্রিকেটারকে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে বড় শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে। যতদিন আদালতে বিচারপর্ব চলবে, ততদিনই হয়তো পুলিশ হেফাজতে থাকতে হবে গুণতিলকাকে। এ বিষয়ে এখনও শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। গুণতিলকার সতীর্থরাও এওই ঘটনার বিষয়ে মুখ খোলেননি।

নিউ সাউথ ওয়েলশ পুলিশের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ‘২৯ বছর বয়সি ওই মহিলার সঙ্গে অনলাইন ডেটিং অ্যাপের মাধ্যমে আলাপ হয় শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটার দানুশকা গুণতিলকার। ওই মহিলার সঙ্গে দেখা করেন গুণতিলকা। ২ নভেম্বর সন্ধেবেলা রোজ বে অঞ্চলে একটি বাড়িতে ওই মহিলাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে গুণতিলকার বিরুদ্ধে। এই অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর তদন্ত শুরু করে পুলিশ। রোজ বে-র ওই বাড়িতে গিয়ে ঘটনাস্থল খতিয়ে দেখে বিভিন্ন নমুনা সংগ্রহ করেন পুলিশ আধিকারিকরা। এরপরেই গভীর রাতে শ্রীলঙ্কার টিম হোটেল থেকে ওই ক্রিকেটারকে গ্রেফতার করা হয়।’

হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটের জন্য শ্রীলঙ্কার হয়ে এবারের টি-২০ বিশ্বকাপে সুপার ১২ গ্রুপ ১-এর একটি ম্যাচেও খেলতে পারেননি গুণতিলকা। তিনি প্রথম রাউন্ডের ম্যাচের পরেই টি-২০ বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যান। তাঁকে শ্রীলঙ্কা দলে আর রাখা হয়নি। কিন্তু তারপরেও দলের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়াতেই ছিলেন গুণতিলকা। মাঠে নেমে দলকে সাহায্য করতে না পারলেও, মাঠের বাইরে অভব্য আচরণের জন্য দল তথা দেশের মুখ পোড়ালেন গুণতিলকা।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘যৌন নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর তদন্ত শুরু হয়। এরপর শনিবার রাত একটা নাগাদ সিডনির সাসেক্স স্ট্রিটের একটি হোটেল থেকে ৩১ বছর বয়সি অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাঁকে সিডনি সিটি পুলিশ স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। শ্রীলঙ্কার ওই নাগরিককে এদিন অডিও ভিস্যুয়াল লিঙ্কের মাধ্যমে প্যারামাটা বেল কোর্টে পেশ করা হয়। আদালত জামিনের আর্জি নাকচ করে দেয়।’

Get real time updates directly on you device, subscribe now.